মেয়ের নামে অনলাইন শপের নাম Azreen’s Fashion । দেড় বছর আছেন অলাইন বিজনেসে। দেড় বছরে ফেসবুক পেইজের লাইক ৫৬,০০০ , এটা দেখেই বোঝা যায়, অনলাইন মার্কেটে তাঁর কাস্টমার কত। ব্যাক্তিগত জীবনে, জব, পড়ালেখা , সংসার সব কিছু নিপুণভাবে সাজিয়েছেন সালমা হাবিব অ্যানি আপু, আজকের দিনে যে কোন উদ্যোক্তা নারীর অনুপ্রেরণা আপু। ফেমিনিজমবাংলার আড্ডায় শুনলাম Azreen’s Fashion র পিছনের মানুষটার গল্প।

উদ্যোক্তা হবার প্রথম দিককার কথা
আমি জব করতাম, তখন অনলাইন থেকে জিনিষ কিনতাম প্রায়ই। একসময় মনে হল আমি অনলাইনে বিজনেসটা করতে পারি, এবং চেষ্টা করব বেস্ট কুয়ালিটি এবং রিজনেবল প্রাইস দেবার জন্য। তারপর গত দেড় বছর ধরে বিজনেস করছি।

a3আপি, আপনার স্কুলিং, জব ?
আমার স্কুল আমার হোমটাউন কুমিল্লা তে। কলেজ ছিল মিরপুর গার্লস আইডিয়াল ইন্সটিটিউট , ওখান থেকেই গ্রাজুয়েশন। এরপর মাস্টার্স করি তেজগাঁও কলেজ থেকে। সম্প্রতি এমফিল করেছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

ব্যাক্তিগত জীবন ?

আমার স্বামী একজন Aeronautical Engineer. তিনি Guif Air এ আছেন । আমার মেয়ে আজরিন, ওর নামেই ফ্যাশন শো। আজরিন এখন নার্সারি তে পড়ে অক্সফোর্ড স্কুলে।

জবের পাশাপাশি এই বিজনেস ! প্রচুর ব্যস্ত থাকতে হয়েছে, পরিবারের সহযোগিতা কেমন পেয়েছেন ?

একদম! আমার মা এবং আমার স্বামী আমাকে সবসময় উৎসাহ দিয়ে আসছে এই বিজনেসের প্রতি। আমার স্বামীই প্রথম ব্যাক্তি যে আমাকে এই বিজনেস করতে সাহায্য করেন।

a2অন্যান্য অনলাইন শপের চাইতে Azreen’s Fashion কিসে ব্যাতিক্রম ? এইখানে কি কি কন্টেন্ট আছে যা একে অনন্য করে তুলেছে ?

আমি কুয়ালিটি আনকমন রাখতে পছন্দ করি Azreen’s Fashion এ । আর চেষ্টা করি প্রাইস টা ব্যায়সাপেক্ষ রাখার জন্য, বেস্ট কুয়ালিটি দেবার জন্য। অনেক ছোট কাজ করে দেই, হোম ডেলিভারি দেই। মূলত একই ডিজাইন এবং সর্বোচ্চ কুয়ালিটির রিজনেবল প্রাইসের মধ্যে দেবার চেষ্টা করি।

এইবার একটু কঠিন প্রশ্ন, নারী উদ্যোক্তাদের চলার পথে প্রচুর বাঁধা সৃষ্টি হয়, সেরকম কিছু অভিজ্ঞতা কি হয়েছে ?
সেই রকম কিছু হয় নি। কিন্তু কাস্টমরদের ক্ষেত্রে কিছু সমস্যা ফেস করতে হয়েছে। অরিজিনাল ছবি দেওয়া সত্ত্বেও তারা বলে অরিজিনাল ছবি দেওয়ার কথা কিংবা রেপ্লিকার ছবির পর অরিজিনাল ছবি দিলে বলে “ ভাল লাগে নি” । তা ছাড়া আগে পে করার কথা থাকে ঢাকার বাহিরের কাস্টমারদের। কিন্তু পেমেন্টের ক্ষেত্রে তারা ট্রাস্ট করতে পারে না, আগে ডেলিভারি চায়, তারপর টাকা। আর অনেক অনলাইন শপ হবার কারণে, দামাদামি করে “একটু কম রাখেন” এইসব বলে।

কাস্টমারদের এইসব নেগেটিভ ফিডব্যাক কি মন খারাপ করিয়ে দেয় ?

হ্যাঁ মন খারাপ করিয়ে দেয়। তখন মনে হয় আরও ভাল করতে হবে , Azreen’s Fashion কে যেন মানুষ চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করে, এর কুয়ালিটি আর প্রাইসের জন্য।

a4               a5
ভবিষ্যতে পরিকল্পনা কি Azreen’s Fashion নিয়ে ?
ভবিষ্যতে আমি অনলাইনের পাশাপাশি বড় পরিসরে যেতে চাই। যাতে Azrren’s Fashion র প্রোডাক্ট দেখেই পছন্দ করে কিনতে চায়। অনলাইন শপিংয়ের ব্যাপারে আমাদের দেশে মানুষ এখনও ইউজড টু না। অধিকাংশ দোকানেই শপিং করতে যায়।
যেসব নারী উদ্যোক্তা হতে চায়, তাদের জন্য আপনার পরামর্শ

তাদের জন্য আমি একটা অনুরোধ করতে চাই, প্লিজ অনলাইন বাজারটা নষ্ট করবেন না ডুপ্লিকেট প্রোডাক্ট কম দাম দিয়ে, গুনগত মানের প্রোডাক্টস প্রভাইড করা হলে অনলাইন শপিং এর ব্যাপারে কাস্টমাররা সকলে ইন্টারেস্ট হবে।

Azreen’s Fashion র ফেসবুক লিংকঃ https://www.facebook.com/AzreensFashion/

Advertisements